Business is booming.

এখানেও ভোটের আগেই জয়ী হয়ে গেল শাসক দল

প্রতীকী ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, বালুরঘাট: শাসক দলের প্রতিনিধি হওয়ায় পরীক্ষায় না বসেই পাশ করার ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়াল দক্ষিণ দিনাজপুরে। আগামী ১৪ মে পরীক্ষার দিন সরকারিভাবে ঘোষিত হলেও, তার আগেই উত্তীর্ন হয়ে গেলেন বেশ কয়েকজন। দক্ষিণ দিনাজপুরের ৬৪টি পঞ্চায়েতের ৫৪টি গ্রাম সংসদের আসনে দ্বিতীয় কোনও প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় বিনা ভোটেই জয়ী হয়েছেন তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থীরা। একই ঘটনা ঘটেছে পঞ্চায়েত সমিতির বেশ কয়েকটি আসনেও।

দক্ষিণ দিনাজপুর জেলাপ্রশাসনিক ভবন সূত্রে জানা গিয়েছে, জেলার ৬৪টি গ্রামসংসদ আসনের সংখ্যা ৯৭৫টি। যার মধ্যে ৫৪টিতে বিরোধী রাজনৈতিক দলের কারোর মনোনয়ন জমা পড়েনি। অনুরূপ ঘটনা ঘটেছে পঞ্চায়েত সমিতির কয়েকটি আসনের ক্ষেত্রেও। জেলার আটটি পঞ্চায়েত সমিতির ১৮৭টি আসনের মধ্যে বিরোধীদের মনোনয়ন নেই আটটিতে। স্বাভাবিক ভাবেই এই বিরোধী শূন্য আসনগুলিতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস।

পঞ্চায়েত ও গ্রামীণ উন্নয়ন দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, জেলায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জিতে যাওয়া গ্রাম সংসদের ৫১টি ও পঞ্চায়েত সমিতির ৮টি আসনই গঙ্গারামপুর ব্লকের বেলবাড়ি ও নন্দনপুর পঞ্চায়েতের অন্তর্গত। আরও জানা গিয়েছে এর বাইরেও গঙ্গারামপুর ব্লকের বেলবাড়ি-১ বেলবাড়ি-২ ও নন্দনপুর পঞ্চায়েত তৃণমূলের দখলে এসেছে। বেলবাড়ি-এর ১১টি আসনের মধ্যে ১০টিতেই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী তৃণমূল প্রার্থীরা। বেলবাড়ি-২ পঞ্চায়েতের ১৯টির মধ্যে ১৫টিতে ও নন্দনপুর পঞ্চায়েতের ১৯টির মধ্যে ১৬টিতে জয়ী হয়েছেন। জেলাপরিষদের ১৮টি আসনের প্রত্যেকটিতেই প্রার্থী রয়েছে বিরোধীদের।

এদিকে এলাকার কেউই নির্বাচন প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহন না করার সিদ্ধান্ত নেওয়ায় কোন ভোটই হচ্ছে না বালুরঘাটের একটি গ্রাম সংসদ আসনে। অমৃতখণ্ড পঞ্চায়েতের চকমাধব সংসদের ভোটাররা এলাকায় রাস্তা না হওয়ার ক্ষোভে এবারের ভোট কেউই অংশ নিচ্ছেন না। বাসিন্দারা রীতিমত বৈঠক করে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যে কেউই কোন দলের তরফেই প্রার্থী হবেন না। এই পরিস্থিতির মধ্যে এলাকার তিনজন বিজেপি, আরএসপি ও তৃণমূলের হয়ে গোপনে মনোনয়ন জমা দিলেও গত বৃহস্পতিবার তা প্রত্যাহার করে নিয়েছেন।

বিজেপি সভাপতি শুভেন্দু সরকারের অভিযোগ, বিরোধী দল হিসেবে জেলায় বিশেষ করে গঙ্গারামপুর এলাকার বহু আসনে তাদের প্রার্থীরা মনোনয়ন জমা দিতে পারেননি। তৃণমূলের গুন্ডারা তাঁদের রাস্তাতেই আটকে মারধর দিয়ে তাড়িয়ে দিয়েছে বলেও তিনি অভিযোগ করেছেন।

তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি বিপ্লব মিত্র জানিয়েছেন, দক্ষিণ দিনাজপুরের সমস্ত আসনেই তাঁরা জয়ী হবেন। বিরোধীদের এই জেলায় কোন প্রভাবই নেই। সেভাবে সংগঠন না থাকায় বহু আসনেই বাম বিজেপি ও কংগ্রেস কোন দলই প্রার্থী দেওয়ার মত লোক পর্যন্ত পায়নি বলেও তৃণমূল সভাপতি পালটা অভিযোগ করেছেন।

©Kolkata24x7 এই নিউজ পোর্টাল থেকে প্রতিবেদন নকল করা দন্ডনীয় অপরাধ৷ প্রতিবেদন ‘নকল’ করা হলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে
—-

—-

Loading...
You might also like