Business is booming.

মানসিক ভারসাম্যহীন যুবককে পরিবারের হাতে তুলে দিল বাঁকুড়া পুলিশ

স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: প্রায় দু’বছর নিখোঁজ থাকার পর হুগলির এক মানসিক ভারসাম্যহীন যুবককে পরিবারের হাতে তুলে দিল বাঁকুড়ার হীড়বাঁধ থানার পুলিশ। পুলিশের এই মানবিক ভূমিকায় খুশি ওই যুবকের পরিবার।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, হুগলির চণ্ডীতলা থানা এলাকার খানপুর মল্লিকপাড়ার বাসিন্দা বছর সাতাশের যুবক মেহেরাজ আলি মল্লিক গত দু’বছর ধরে নিখোঁজ ছিলেন।

শনিবার রাতে হীড়বাঁধের আসবেড়িয়া গ্রামে উদ্দেশ্যহীনভাবে ওই যুবককে ঘোরাফেরা করতে দেখা যায়। তাঁকে দেখে গ্রামবাসীর সন্দেহ হয়৷ তাঁরা হীড়বাঁধ থানায় খবর দেয়৷

ওই দিন রাতেই পুলিশ ওই গ্রাম থেকে যুবককে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদের সময় ওই যুবক অসংলগ্ন কথা বলতে থাকে। পরে তার কথার সূত্র ধরেই হীড়বাঁধ থানার পুলিশ হুগলির চণ্ডীতলা থানার সঙ্গে যোগাযোগ করে।

চণ্ডীতলা থানার পুলিশ পুরনো কেস ডায়েরির সঙ্গে হীড়বাঁধ থানা থেকে পাঠানো এই যুবকের ছবি মিলিয়ে নিশ্চিত হয়৷ উদ্ধার হওয়া যুবক গত দু’বছর আগে হুগলির খানপুর মল্লিক পাড়া থেকে নিখোঁজ মেহেরাজ আলি খানই। রাতেই চণ্ডীতলা পুলিশের কাছ থেকে খবর পেয়ে ওই যুবকের পরিবার হীড়বাঁধের উদ্দেশে রওনা হন। এদিন দুপুরে উদ্ধার হওয়া মানসিক ভারসাম্যহীন ওই যুবককে হীড়বাঁধ পুলিশের পক্ষ থেকে পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

নিখোঁজ ভাইকে হীড়বাঁধ থানায় নিতে আসা দাদা সামসুদ্দিন মল্লিক পুলিশের ভূমিকার ভূয়সী প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, ‘গত দু’বছর ধরে বিভিন্ন জায়গায় ভাইকে খুঁজেছি। কোথাও পাইনি। হিড়বাঁধ থানার সৌজন্যে ভাইকে খুঁজে পেয়ে খুবই খুশি হয়েছি।’

©Kolkata24x7 এই নিউজ পোর্টাল থেকে প্রতিবেদন নকল করা দন্ডনীয় অপরাধ৷ প্রতিবেদন ‘নকল’ করা হলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে
—-

—-

Loading...
You might also like