Business is booming.

নরেন্দ্র মোদিকে খোঁচা দিয়ে ক্ষমা চাইল আইসিসি

(প্রিয়.কম) ২০১৩ সালে ভারতের যোধপুরে নিজ আশ্রমে ১৬ বছর বয়সী এক কিশোরীকে ধর্ষণের কারণে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয় আসারাম বাপুকে।

২৫ এপ্রিল, বুধবার আদালতের ওই রায় ঘোষণার পরেই প্রতীক সিংহ নামের এক ব্যক্তি ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে আসারামের একটি পুরানো ভিডিও পোস্ট করেন।

সেই পোস্টটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে শেয়ার করে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থার অফিশিয়াল পেজে করা এমন রাজনৈতিক পোস্ট জন্ম দেয় তুমুল সমালোচনার। পরবর্তী সময়ে ওই পোস্ট ডিলিট করে ক্ষমা চেয়ে নতুন পোস্ট দেয় আইসিসি।

আইসিসির টুইট

টুইটারে প্রতীক সিংহর করা ওই পোস্টে মোদির সঙ্গে আসারামের পুরনো ভিডিওটির ক্যাপশনে লেখা ছিল, ‘নরেন্দ্র মোদি ও আসারামের কিছু পুরানো মধুর স্মৃতি সবার সঙ্গে শেয়ার করছি।’ আইসিসি প্রতীকের সেই পোস্টটি শেয়ার করে। ক্যাপশনে লেখা ছিল, ‘নারায়ণ, নারায়ণ’।

তীব্র সমালোচনার শিকার হয় আইসিসি।

এরপরই ঝড় উঠে সামাজিক যোগাযোগের বিভিন্ন মাধ্যমে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থার ৮২ লাখ ফলোয়ারের টুইটার পেজ এই ধরনের পোস্ট দিতে পারে কি না, তা নিয়েও প্রশ্ন ওঠে। রি-টুইটে আইসিসির প্রতি ক্ষোভ ঝাড়তে থাকেন ভারতীয়রা। অন্যান্য দেশের সমর্থকরাও আইসিসির পেজে রাজনৈতিক পোস্টের সমালোচনা করেন। কেউ কেউ আইসিসির ওই আইডি কে চালায় তা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন।

ক্ষমা চেয়ে আইসিসির নতুন টুইট

তীব্র সমালোচনার মুখে আইসিসি তাদের ওই পোস্ট ডিলিট করে দেয়। পরবর্তী সময়ে নতুন টুইট করে ক্ষমা চায় সংস্থাটি। ক্ষমা চেয়ে আইসিসি টুইটে লেখে, ‘আজ সকালে টুইটারে ক্রিকেট বহির্ভূত একটি বিষয় নিয়ে টুইট হওয়ার জন্য আইসিসি আন্তরিকভাবে দুঃখিত। অল্প সময়ের জন্য হলেও, কেউ যদি আহত হয়ে থাকেন, তার জন্য ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি। কীভাবে এই ঘটনা ঘটল, তার তদন্ত করা হবে।’

প্রিয় খেলা/রুহুল

Loading...
You might also like